Amazon

করোনা মোকাবিলায় দেশের সাধুরা দান করলেন ৫১ লাখ


বর্তমান সময়ে সারা বিশ্ব করোনার দাপটে ঘর বন্দী। ভারতেও প্রায় এক মাসের বেশি সময় ধরে চলেছে লকডাউন। এই লোক ডাউনে দেশের অর্থনীতিকে ঠিক রাখতে বহু অর্থনীতিবীদ অনেক সংস্থা, সংগঠন এগিয়ে এসেছে এবং তাদের অর্থ দান করেছেন।

এবার ভারতের গৃহহীন সাধুরা প্রায় ৫১ লাখ টাকা সরকারের কাছে দান করেছেন। প্রাচীনকাল থেকেই বলা হয় যে ভারত মুনি-ঋষিদের দেশ আজকে সেই মনী ঋষিরাও তাদের এই দানের মাধ্যমে তাদের ভারত মাতার প্রতি কর্তব্য পালন করেছেন।

 ভারতবর্ষকে মনি-ঋষিদের দেশ বলা হলেও বারবার এই ভারতবর্ষেই মনিঋষিদের ওপর আক্রমণ অন্যায় হয়েছে। প্রাচীনকাল থেকেই মুনি-ঋষিরা তাদের এই ভারতে লাঞ্চিত বঞ্চিত হয়েছেন এবং বারবার তাদের ওপর আক্রমণ করা হয়েছে।

কিছুদিন আগেই মহারাষ্ট্রের পাল ঘরেও এরকমই একটি ঘটনা ঘটেছে। সেখানে দুই হিন্দু সন্ন্যাসী সহ তাদের ড্রাইভার কেউ কিছু দুষ্কৃতী মেরে ফেলে। ইতিমধ্যে এ নিয়ে অনেক জল্পনা সৃষ্টি হয়েছে।

এই সব কঠিন পরিস্থতির মধ্যেও দেশের এই গৃহহীন সাধুরা তাদের দেশের প্রতি কর্তব্যের কথা ভুলে যাননি। তারা তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী তাদের ভারত মাতার জন্য দান করেছেন।

এই স্বাধীনতা ভারত ভূমিতে সেই প্রাচীনকাল থেকে লাঞ্ছিত হয়ে আসছেন। প্রাচীনকালে রামায়ণের যুগ থেকেই আমরা দেখে আসছি যে মরিচীকা বিভিন্ন ধরনের নরপিশাচদের দ্বারা আক্রান্ত হচ্ছেন। সেই যুগ থেকে শুরু করে এই যুগ পর্যন্ত তারা শুধুমাত্র লাঞ্ছিত হয়েছেন।

কিন্তু তাদের এই গানের মাধ্যমে তারা প্রমাণ করে দিয়েছেন যে ভারত ভূমিতে তারা লাঞ্ছিত বঞ্চিত হলেও এই ভারত ভূমি তাদের মা তাদের জন্মস্থান তাদের কর্মস্থল। তাই তারা শত কষ্টের মধ্যেও ভারতের মধ্যেই থাকবেন এবং ভারতের মঙ্গলের জন্য ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করে যাবেন।

কিছুদিন আগে পাল ঘরে ঘটে যাওয়া ঘটনা যা উপরে বর্ণিত হয়েছে তা সত্যি খুব নিন্দনীয়। এই ধরনের কাজ শুধুমাত্র মানুষরূপী রাক্ষস রাই করতে পারে। সমস্ত সাধুরা এই হত্যাকাণ্ডের বিচার চেয়েছেন মহারাষ্ট্র সরকারের কাছে। আশা করব এই ঘৃণ্য হত্যাকাণ্ডের দ্রুত বিচার হবে।

Post a Comment

0 Comments