Amazon

লকডাউনে সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের কথা ভেবে মুখ্যমন্ত্রীকে স্মারকলিপি প্রদান করা হলো এ.বি.ভি.পি এর পক্ষ থেকে


কলকাতা: করোনা মহামারীর এই সংকটময় পরিস্থিতিতে অনেক সেবামূলক কাজের জন্য এগিয়ে এসেছে অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ। এই ভয়াবহ পরিস্থতিতে সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের পাসে দাড়াতে তৎপর বিদ্যার্থী পরিষদ। রাজ্যের সবকটি জেলাতে তারা হেল্পলাইন নম্বরও চালু করেছেন।

ছাত্রছাত্রীদের সুবিদার্থে দুই রাজ্য সম্পাদক সুরঞ্জন সরকার ও বিরাজ বিশ্বাস রাজ্যের সমস্ত কলেজের ছাত্র নেতাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধেমে বৈঠক করেছেন। এই বৈঠকে রাজ্যের ছাত্রনেতা ছাড়াও ছিলেন এ.বি.ভি.পি এর রাষ্ট্রীয় সম্পাদক সপ্তর্ষি সরকার।

হোস্টেলে আটকে যাওয়া ছাত্র ছাত্রীদের যাবতীয় সামগ্রী প্রদান, ৩ মাসের হোস্টেল খরচ মাফ করা, সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে হেল্পলাইন নাম্বার চালু সহ ১৫ দফা দাবি সহ একটি স্মারকলিপি তৈরি করা হয়। স্মারকলিপি মঙ্গলবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছে বলে জা জানিয়েছেন নিয়েছেন রাষ্ট্রীয় সম্পাদক সপ্তর্ষি সরকার।

বিভিন্ন স্থানে হোস্টেলে আটকে থাকা সত্বেও জন্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য এবং খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার দাবিও তারা করেছেন। তারা আরো বলছেন ছাত্রদের স্বার্থে সব সময় আমরা রয়েছি এবং লড়বো। এছাড়া রাজ্যের বাইরে আটকে থাকা ছাত্রদের রাজ্যে ফেরানোর দাবি করেছেন। 

আর বাইরে রাজ্য থেকে যে সমস্ত ছাত্ররা বাংলায় এসে পড়াশোনা করছেন তাদের জন্য প্রতিটি হোস্টেলে হেল্পলাইন নাম্বার চালু করতে হবে এবং তাদের প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী এবং অন্যান্য সামগ্রী দিতে হবে। ছাত্রদের জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত ধরনের নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রধান করতে হবে তাদের এবং তাদের সাথে সমস্ত রকম যোগাযোগ রাখতে হবে। তাদের সুরক্ষার প্রতি যথেষ্ট খেয়াল রাখতে হবে।

তাঁরা আরও দাবি করেন যে বাইরের রাজ্যে আটকে থাকা ছাত্রদের সেই রাজ্য সরকারের সঙ্গে কথা বলে রাজ্যে ফেরাতে হবে। রাজ্যে ফেরানোর পরে তাদের থার্মাল স্ক্রিনিং করাতে হবে এবং ১৪ দিনের কমেন্টের মাধ্যমে পরীক্ষা করতে হবে। এছাড়া ছাত্রদের যতরকম সুবিধা প্রয়োজন সেগুলো পূরণ করতে হবে। 

ছাত্র-ছাত্রীদের অনলাইন ক্লাস করানো থেকে শুরু করে আরো বেশ কয়েকটি দাবি তারা রাজ্য সরকারের কাছে পেশ করেন। সপ্তর্ষি সরকার বলেন এই সমস্ত দাবি গুলি আমরা মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে পেশ করেছি এবং আশা করছি আমাদের এই দাবিগুলো পূরণ করা হবে।

Post a Comment

0 Comments