Amazon

কেদারনাথে প্রথম পুজো হলো প্রধানমন্ত্রীর নামে!


কেদারনাথ: করোনা মহামারী সমস্ত বিশ্বে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। লকডাউন এ দেশের সমস্ত ধর্মীয় স্থানগুলিও বন্ধ রয়েছে। তবে গত ২৯ এপ্রিল বুধবার খুলে গেলো কেদারনাথের দরজা। প্রথম পুজো দেওয়া হলো প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নামে।

বুধবার সকালে গারোয়াল হিমালয়ে অবস্থিত ১১ তম জ্যোতির্লিঙ্গ কেদারনাথ মন্দিরের দরজা খুলে দেওয়া হলো। প্রতিবার এই সময় প্রচুর ভির হয়। এই প্রথমবার পুরোহিত সহ মাত্র ১৬ জনকে নিয়ে কেদারনাথ মন্দিরের দরজা খোলা হয়। ১০ কুইন্টাল ফুল দিয়ে মন্দির সাজিয়ে মোদীর নামে পুজো দেওয়া হয় মোদীর নামে। প্রথমবার এই পুজোয় উপস্থিত ছিল না অন্য কেউ। শুধুমাত্র মন্দির কতৃপক্ষের উপস্থিতিতে দেওয়া হয় পুজো।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পক্ষ থেকেই প্রথম রুদ্রাভিষেক করা হয়। তবে লকডাউনের কারণে তীর্থযত্রীদের ওপর নিষেধজ্ঞা জারি করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। মন্দিরে শুধুমাত্র মন্দিরের পুরোহিত নিয়মিত পুজো দিতে পারবেন। অন্য কাউকেই সেখানে প্রবোধিকার দেওয়া হবে না।

এইদিন মোদীর নামে প্রথম পুজো দেওয়া হয় এবং দেশের পরিস্থিতি সঠিক হওয়ার জন্য ভগবানের কাছে প্রার্থনা করা হয়। মন্দির খোলা হলেও কোনো পর্যটক এই মন্দিরে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না বলে জানা মন্দির কর্তৃপক্ষ। যতদিন পর্যন্ত পরিস্থিতি সঠিক হয় ততদিন শুধুমাত্র মন্দিরের পুরোহিত মন্দিরে পুজো দিতে আসবেন।

পরিস্থিতি সঠিক হয়ে যাওয়ার পর আবার মন্দিরের দরজা সমস্ত পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হবে বলে জানা যায়। তারপর আবার সমস্ত দর্শনার্থীরা কেদারনাথ দর্শন করতে আসতে পারবেন। তখন সমস্ত হোক তোকে কে জান্নাতে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে।

সবাই বাড়িতে থাকুন সুস্থ থাকুন এবং সরকারের লকডাউন মেনে চলুন। একমাত্র এই লোকটা উনিপথ কোরআন ও হাদিস থেকে বাঁচার জন্য যা আমাদের মেনে চলতে হবে। কোন বিশেষ কারণে বাইরে বেরোলেও সামাজিক দূরত্ব যথেষ্ট পরিমাণে বজায় রাখতে হবে। এই করোনা ভাইরাস সংক্রমণ শেষ হওয়ার পর আবার সমস্ত ধর্মীয় স্থান গুলির মত কেদারনাথও খুলে দেওয়া হবে। ততদিন সবাই বাড়িতে থেকেই ভগবানের কাছে প্রার্থনা করবেন যাতে পৃথিবীর এই অসুখ খুব দ্রুত পৃথিবী ছেড়ে চলে যায়।

Post a Comment

0 Comments