Amazon

লকডাউন কি আরো বাড়তে পারে? জেনে নিন কি বললেন মুখ্যসচিব রাজিব সিনহা!




কলকাতা: বর্তমান সময়ে ভারত ও সমস্ত বিশ্ব এক কঠিন মহামারীর মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। এই করোনা মহামারী থেকে বাঁচার একমাত্র পথ সোশাল ডিস্টেনসিং। তাই অন্যান্য দেশের মতো ভারতেও চলছে লকডাউন। দীর্ঘ ১ মাসেরও বেশি সময় ধরে ভারতে লকডাউন চলছে। দেশের অর্থনীতির প্রচুর ক্ষতি হচ্ছে এই লকডাউন এর কারণে।

আগামী ৩ মে লকডাউন তুলে দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তুু করোনা ভাইরাসকে এখনও সম্পূর্ণভাবে নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি এবং এর কোনো ধরনের টিকা আবিষ্কার হয়নি যদিও প্লাজমা থেরাপির মাধ্যমে কিছুটা সফলতা পাওয়া গিয়েছে বলে জানা যায়।
এই লকদাউনে অনেক সাধারণ মানুষ খুব অসুবিধার মধ্যে আছে, দিন আনা দিন খাওয়া পরিবারগুলি সবথেকে কষ্টের মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছে। কিছু সংস্থা এই পরিবার গুলিকে সাহায্যের জন্য এগিয়ে এসেছে।

তবুও সমস্যা তো হচ্ছেই তাই সাধারণ জনগণের কথা ভেবে সরকার ৩ মে লকডাউন তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছিল। কিন্তুু করোনা সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে না থাকায় লকডাউন হয়তো আরো বাড়ানো হতে পারে বলে জানিয়েছেন মুখ্যসচিব রাজিব সিনহা। এই ব্যাপারে কেন্দ্রের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। কিছু কিছু জায়গা যেখানে করোনা এর প্রকোপ কম সেখানে বিশেষ ছাড় দেওয়া হতে পারে বলেও জানা যায়।

তবুও লকডাউন উঠে যাওয়া মানে এই নয় যে করোনা ভাইরাস আর নেই। তাই লকডাউন উঠে যাওয়ার পরেও অনেক ধরনের প্রতিবন্ধকতা থাকবে। আমাদের নিজেদের কেউ অনেকটা সাবধান থাকতে হবে। আমাদের দেশের জনঘনত্ব অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক বেশি তাই আমরা যদি সতর্কতামূলক ভাবিনা চলি তাহলে করোনাভাইরাস একবার ভারতের ছড়িয়ে পড়লে সেই সংক্রমণ আটকানো সহজ হবে না।

তাই সবাই বাড়িতে থাকুন সুস্থ থাকুন এবং সরকার দ্বারা প্রদত্ত সর্তকতা গুলি সবসময় মেনে চলুন। বাইরে কোথাও বেরোলে অবশ্যই মাস্ক অথবা গামছা ব্যবহার করবেন। কোন ব্যক্তির সাথে কথা বলার সময় অবশ্যই ন্যূনতম ১ থেকে ২ মিটারের বেশি দূরত্ব বজায় রেখে কথা বলবেন।

করোনাভাইরাস এর টিকা আবিষ্কার হয়নি এখনো এবং যতদিন পর্যন্ত এই টিকা আবিষ্কার হবে না ততদিন আমাদের এই নিয়মগুলো মেনে চলতে হবে। আমাদের কাছে একমাত্র অস্ত্র সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা তাই অবশ্যই সবাই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন এবং যতটা সম্ভব ঘরে থাকতে চেষ্ঠা করবেন।

Post a Comment

0 Comments