Amazon

পালঘর সাধু হত্যাকাণ্ডকে কেন্দ্র করে উত্তর প্রদেশ সরকার এবং মহারাষ্ট্র সরকারের মধ্যে সংঘাত!

পালঘর: ভয়ংকর এই মহামারীর মধ্যে ১৮ এপ্রিল ঘটে এক ঘৃন্নতর হত্যাকাণ্ড। দুই হিন্দু সাধু তাদের গুরুর অন্তিম সংস্কারের জন্য যাচ্ছিলেন। লকডাউন এর কারণে তারা প্রধান সড়ক দিয়ে না গিয়ে পালঘর নামক জায়গার একটি ছোট রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন। সেখানে বেশ কিছু দুষ্কৃতী তাদের গাড়ি আটকে দেয়  এবং হামলা শুরু করে। সেই খানে দুই সাধু ও তাদের ড্রাইভার কে পুলিশের সামনেই মেরে ফেলা হয়।

পুলিশ সেখানে উপস্থিত থাকলেও তাদের কোনো ধরনের সাহায্য করেনি। এই নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই জল্পনা চলছে। অনেকের মতে তারা হিন্দু সাধু হাওয়ার জন্যই তাদের গেরুয়া বস্ত্র দেখে তাদের উপর আক্রমণ হয়। দেশের অনেকই এই ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন।

এখনও পর্যন্ত এই ঘটনার দোষীদের গ্রেফতার হয়নি। এই বিষয়কে কেন্দ্র করেই উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ও মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে সংঘাত সৃষ্টি হয়।
দুইজনের মধ্যে বেশ কয়েকটি টুইট এর মাধ্যমেও যুদ্ধ চলে।
যোগী আদিত্যনাথ বলেন এটি মহারাষ্ট্র সরকারের তুষ্টিকরণের সূচনা।

কিছুদিন আগে উত্তরপ্রেশে এই ধরনের একটি ঘটনা ঘটে কিন্তু সেখানে খুব দ্রুত সমস্যার সমাধান করা হয় এবং দোষীদের গ্রেপ্তার করা হয়। সেই কথাও যোগী আদিত্যনাথ শুনিয়েছেন উদ্ধব ঠাকরে কে। তিনি উদ্ধব ঠাকরে কে এই ঘটনার খুব দ্রুত সমাধান করতে বলেছেন।

উদ্ধব ঠাকরে যোগী আদিত্যনাথ কে কটাক্ষ করে বলেছেন আপনি উত্তরপ্রদেশ সামলান। প্রত্যুত্তরে যোগীন্দ্রনাথ বলেছেন উত্তর প্রদেশ নিয়ে আপনাকে ভাবতে হবে না আপনি মধ্যপ্রদেশের পাল করে ঘটে যাওয়া এই মর্মান্তিক ঘটনার নিষ্পত্তি করুন আগে। উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ আরো বলেছেন উদ্ধব ঠাকরে তুষ্টিকরণ এর সূচনা করছেন, তিনি এই কাজের মাধ্যমে কোথায় তুষ্টিকরণ সূচনা করে ফেলেছেন তা তিনি ভবিষ্যতে বুঝতে পারবেন।

নাগা সাধুরা মহারাষ্ট্র সরকারকে এই ঘটনার দ্রুত সমাধান করার কথা জানিয়েছেন। তারা বলেছেন এই ঘটনার সমাধান না হলে এবং দোষীরা উপযুক্ত শাস্তি না পেলে লক খোলার পরে সমস্ত দেশের সাধুরা মধ্যপ্রদেশ যাবে এবং সরকারকে ঘেরাও করবে। সেখানে তারা সরকারের কাছে এই ঘটনার উত্তর চাইবে।

Post a Comment

0 Comments