আল-কায়েদা আতঙ্কবাদি মোহাম্মদ জুবায়ের কে আমেরিকা ভারতের কাছে হস্তান্তর করল!


ওয়েব ডেস্ক: দীর্ঘ সময় ধরেই বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশেই ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং নরেন্দ্র মোদীর বন্ধুত্বের আলোচনা সমস্ত খবরের শীর্ষে ছিল।  ভারত আর আমেরিকার সম্পর্ক আরো শক্তিশালী হচ্ছে। এইবার তা সমস্ত বিশ্বের সামনে আরো এক সুন্দর নজির গড়লো। আল কায়দা আতঙ্ক বাদী মহম্মদ যুবের কে ধরে ভারতের কাছে সমর্পণ করলো আমেরিকা।

মহম্মদ জুবের ভারতের হায়দ্রাবাদের বাসিন্দা ছিল। জুবের সেখান থেকেই তার পড়াশোনা শেষ করে এবং পরে আমেরিকা চলে যায়। পরে জুবের আমেরিকায় নাগরিকত্ব অর্জন করে এবং সেখানেই বসবাস শুরু করে।জুবের আমেরিকায় আল কায়দা আতঙ্ক বাদী সংগঠনের সংস্পর্শে আসে। জুবের ধীরে ধীরে আল কায়দার ঘনিষ্ট হয়ে আসে এবং আতঙ্ক বাদী কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পরে। জুবের আমেরিকায় আল কায়দার ফান্ডিং এর কাজ করতো।

আমেরিকান সুরক্ষা সংস্থা যুবেরের এই ধরনের কাজে যুক্ত থাকার সন্দেহ করে এবং তদন্ত করে। জুবেরের এই কাজে যুক্ত থাকার কথা। এই পরেই তারা জুবের কে ধরে নিয়ে যায়। তাদের কাষ্টাডি  তে যুবেরকে রাখা হয়।তার পরিচয় প্রমাণ পাওয়ার পর জানা যায় যে সে ভারতের হায়দ্রাবাদের বাসিন্দা ছিল।

এর পর বুধবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট থেকে জুবেরকে ভারতে অনা হয়। জুবের কে ভারতের কাছে হস্তান্তর করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। আপাতত জুবের কে পাঞ্জাব এর অমৃতসরে রাখা হয়ছে। সেখানে কোয়ারিন্টিনে আছে মহম্মদ জুবের। কয়ারেন্টিনের সময় শেষ হলে তাকে জেলে রাখা হবে। পরে তার বিচার করা হবে।

এই ঘটনা ভারতের সাথে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কূটনৈতিক গভীরতার প্রমাণ দিয়েছে। ভারতের সাথে আমেরিকার সম্পর্ক কতটা বন্ধুত্বের এবং কতটা গভীর ত এই ঘটনা থেকে স্পষ্ট। ভারত দিনে দিনে বিশ্ব গুরু হাওয়ার দিকে এগিয়ে চলেছে।

এছাড়া আরো একটি গুরুত্ব পূর্ণ খবর সামনে এসেছে। পাকিস্থানের দখলে থাকা কাশ্মীর ভারত ফিরে পেতে পারে এই ধরনের পরিকল্পনা চলছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী খুব দ্রুত পাকিস্তান অকুপাইড কাশ্মীরে ভারতের জাতীয় পতাকা উড়বে। খুব শীগ্রই সমগ্র কাশ্মীর ভারতের দখলে চলে আসবে।

এই ঘটনার পর থেকে ভারতের শত্রু দেশগুলি খুবই ভীত হয়ে আছে। ভারত আর আমেরিকার মধ্যে বেড়ে উঠায় বন্ধুত্বের সম্পর্ক শত্রু দেশগুলি খুবই আশঙ্কার মধ্যে রয়েছে। শুধুমাত্র আমেরিকার সঙ্গে বন্ধুত্বের কারণেই নয় ভারতের ক্রমবর্ধমান সামরিক শক্তির কারনেও পাকিস্তানের সহ কিছু শত্রু দেশ এখন ভারতের সঙ্গে শত্রুতা শেষ করতে চাইছে। তারা বুঝে গেছে ভারতের সাথে পেরে ওঠা এখন খুব একটা সহজ হবে না, তাই ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্বের সম্পর্ক বজায় রাখাটাই এখন বুদ্ধিমানের কাজ।


শুধুমাত্র আমেরিকায় নয় ভারতের সঙ্গে রয়েছে বেশ কয়েকটি দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক। ভারতের সঙ্গে ইজরায়েল জাপান আমেরিকার মত শক্তিশালী বেশ কয়েকটি দেশের খুব গভীর সম্পর্ক রয়েছে। এছাড়া করো না সময়ে চীন থেকে উঠে আসা বাণিজ্যিক সংস্থাগুলি ভারত চলে আসলে ভারত অর্থনৈতিক দিক থেকেও অনেক এগিয়ে যাবে। বিশ্ব গুরু হওয়ার পথে ভারত আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল।

Post a Comment

0 Comments